রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ , ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

দেশ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ভ্রমণ পিপাসুদের উপচে পড়া ভিড়

মহিউদ্দিন আহমেদ, শ্রীপুর (গাজীপুর) ১৩ এপ্রিল, ২০২৪, ১৯:৩১:৫৭

109
  • ছবি : নিউজজি

গাজীপুর: ঈদের তৃতীয় দিনে গাজীপুরের শ্রীপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে ভ্রমণ পিপাসুদের উপচে পড়া ভিড় ছিল।

ঈদের তৃতীয় দিন সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সাফারি পার্কের প্রধান ফটকের বাইরে হাজার হাজার দর্শনার্থী টিকেট কাউন্টারের পাশে টিকিট পাওয়ার অপেক্ষায় দীর্ঘলাইনে দাঁড়িয়ে আছে। পার্কের প্রবেশ মুখে বাহিরে খালি জায়গায় বিভিন্ন ধরনের পণ্যের দোকান বসানো হয়েছে।

পার্কে প্রধান ফটকের বাহিরে শত শত ব্যক্তিগত ভাড়ায় চালিত গাড়ি পার্ক করা ছিল। এসব গাড়িতে করে দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে ভ্রমন পিপাসুরা সাফারি পার্কে এসেছেন। পার্কের প্রবেশ মুখের বাইরের অংশে ঘোড়ার গাড়ি থেকে শুরু করে বিভিন্ন ধরনের অস্থায়ী বিনোদনের ব্যবস্থাও ছিল। আছে বিভিন্ন ধরনের খাবারের দোকান।

পার্কের প্রবেশ মুখ পেরিয়ে পশ্চিম পাশে রয়েছে পার্কের প্রধান আকর্ষণ কোর সাফারি পার্ক। সেখানে আলাদা বেষ্টনীতে উন্মুক্ত পরিবেশে রয়েছে বাঘ, ভালুক, সিংহ, জেব্রা, জিরাফসহ আফ্রিকান বিভিন্ন ধরনের প্রাণী। সেখানেও বাসে উঠার জন্য লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে দর্শনার্থীরা টিকিট কাটছেন।

কোর সাফারি পার্কের রয়েছে আটটি মিনিবাস। কিছুক্ষণ পর পর দর্শনার্থীদের নিয়ে প্রাণীদের বেষ্টনীর ভেতর ঘুরে আসছে ওইসব মিনিবাস। এতে চড়ে পার্কের ভেতরে উন্মুক্ত পরিবেশে দেখা যায় বাঘ, সিংহ, ভালুক, জেব্রা, জিরাফসহ বিভিন্ন প্রাণী।

কোর সাফারির পশ্চিমে সাফারি কিংডমের প্রবেশ পথ। সেখানে আলাদা আলাদা টিকিট কেটে দর্শনার্থীরা দেখছেন ম্যাকাও, টিয়া, ঘুঘুসহ বিভিন্ন বিদেশি পাখি। কেউ কেউ আবার ম্যাকাও পাখির সাথে সেলফি নিচ্ছে। মাঝে মধ্যে কয়েকটি ম্যাকাও পাখি উড়ে এসে দর্শনার্থীর গায়ে বসছে।

বিকাল ৩টা দিকে পার্কের ভেতরে দেখা যায়, দর্শনার্থীদের উপচে পড়া ভিড়। পার্কের ভেতরে হেঁটে ঘুরে ঘুরে দর্শনার্থীরা দেখছেন কুমির, জলহস্তী, মদন টাক, উটপাখি, ইমু পাখি, বিভিন্ন ধরনের সাপ, ঈগল, ভুবন চিল ও রঙিন মাছ।

শিশু দর্শনার্থীর জন্য সাফারি পার্কের একটি অংশে তৈরি করা হয়েছে শিশুপার্ক। সেখানেও টিকিট কাটতে লম্বা লাইনে দাঁড়াতে হয়। তবে লাইনে দাঁড়ানোর পর টিকেট কেটে শেষে শিশুপার্কে প্রবেশ করেই বিনোদন নিতে পারছেন তারা।

শনিবার বিকালে কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলা থেকে সবুজ মিয়া এসেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারি পার্কে। তিনি বলেন, ঈদের ছুটিতে সাফারি পার্কে ঘুরতে এসে টিকিট কাটতে বেগ পেতে হলেও প্রাণী ও পশুপাখি দেখে সেই কষ্ট ভুলে গেছেন তিনি।

নেত্রকোনা কেন্দুয়া উপজেলা থেকে বিউটি আক্তার পার্কে এসেছেন শাশুড়ি ও দেবরকে সাথে নিয়ে। তিনি বলেন, ঈদের তৃতীয় দিন ও এতো লোক হবে বুঝতে পারিনি। লোকে লোকারণ্য হয়ে গেছে। পার্কে প্রবেশ করতে টিকিটের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হয়েছে এক ঘণ্টারও বেশি। কোর সাফারির বাসে উঠতে প্রায় ৩০ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে। এত সব ঝামেলার পর বাঘ ও সিংহ দেখতে পেয়েছি।

সাফারি পার্কের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. রফিকুল ইসলাম জানান, আজ শনিবার ঈদের তৃতীয় দিন সকাল ৯টা থেকে পার্কে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ১২ হাজার ৩৫০ জন দর্শনার্থী প্রবেশ ছিল। ঈদের ছুটিতে প্রতিদিনই দর্শনার্থীদের সংখ্যা বাড়ছে।

 

নিউজজি/এসএম

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন