বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই ২০২৪, ১০ শ্রাবণ ১৪৩১ , ১৮ মুহররম ১৪৪৬

দেশ

সৈয়দপুরে এসপির নামে ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণা, ২ যুবক আটক

নীলফামারী প্রতিনিধি ১৪ জুন, ২০২৪, ১৬:২৬:১৩

145
  • সৈয়দপুরে এসপির নামে ফেসবুক আইডি খুলে প্রতারণা, ২ যুবক আটক

নীলফামারী: সৈয়দপুর থেকে ২ যুবককে আটক করেছে দিনাজপুরের ডিবি পুলিশ। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) দিবাগত রাত সাড়ে ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে বাড়ি থেকে তাদের আটক করা হয়। দিনাজপুর ডিবি পুলিশের এসআই বিশ্বজিৎ এই অভিযানে নেতৃত্ব দেন। সৈয়দপুর থানার এসআই দীপু তাকে সহযোগিতার করেন।

জানা যায়, দিনাজপুর জেলার পুলিশ সুপারের (এসপি) নাম ও ছবি ব্যবহার করে একাধিক ফেসবুক আইডি খুলে লোকজনের সাথে প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। তাই সুনির্দিষ্ট প্রমাণের ভিত্তিতেই এই অভিযান চালানো হয়।

আটকে যুবকরা হলেন—সৈয়দপুর উপজেলার খাতামধুপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ঠনঠনিয়াপাড়ার কাছের মাহমুদের ছেলে আলামিন ও সাম্বারুর ছেলে রুহুল আমিন। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সহযোগিতায় দীর্ঘদিন থেকে নানা ধরনের প্রতারণা করে আসছে। এর মধ্যে বিশেষ করে আইনি সহায়তা দেয়ার নামে দেশের বিভিন্ন এলাকার লোকজনসহ প্রবাসীদের কাছ থেকে অর্থ হাতিয়ে নেয়াসহ থাই জুয়া (লটারী) ও ভিসা প্রতারণায় জড়িত।

দিনাজপুর জেলার এসপি শাহ ইফতেখার আহমেদ, পিপিএম (বার) জানান, প্রায় এক মাস আগে দেশ ও বিদেশের বেশ কয়েক জনের কাছ থেকে জানতে পাই যে, আমার ও আমাদের প্রবাসী কল্যাণ অফিসারসহ বেশ কয়েকজন অফিসারের ছবি ব্যবহার করে একাধিক ফেসবুক আইডি খুলে আইনী সহায়তা তথা জিডি, মামলার তদবীর, পুলিশ ক্লিলিয়ান্স, তদন্ত রিপোর্ট পক্ষে করে দেয়ার নামে প্রতারণা করা হচ্ছে।

এর প্রেক্ষিতে আমাদের সাইবার ক্রাইম ইউনিটকে বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেই। তারা তদন্ত করে অভিযোগের সত্যতা পায় এবং দীর্ঘ এক মাস চেষ্টা করে এই অপরাধের সাথে জড়িতদের চিহ্নিত করতে সক্ষম হয়। এরপর তাদের পরিচয় ও ঠিকানা নিশ্চিত হয়ে অভিযান চালানো হয়। বৃহস্পতিবার রাতে চালানো অভিযানে নীলফামারীর সৈয়দপুর থেকে ২ যুবককে আটক করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আটক যুবকদ্বয়ের পক্ষে তদবির করতে ওই এলাকার ২ জন লোক এসেছে। আমি তাদেরকেও আটকের নির্দেশ দিয়েছি। এ ঘটনায় নিয়মিত মামলা করা হবে এবং রিমান্ডে নিয়ে এ বিষয়ে আরো তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করে অন্য আর কেউ জড়িত থাকলে তাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শুক্রবার (১৪ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টায় সরেজমিনে গেলে আটক রুহুল আমিনের মা রুবি বেগম বলেন, আমার ছেলে কিছুই করেনি। এলাকায় কত ছেলে থাই ও ভিসা কারবার করে লাখ পতি কোটি পতি হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে প্রশাসন নিরব। আর যারা হাজার টাকাও কামাই করতে পারেনি তাদের আটক করছে। আসলে ষড়যন্ত্র করে এই ২ জনকে ধরিয়ে দিয়েছে চিহ্নিত সুবিধাভোগী দালাল চক্র। আর আলামিনের বড় ভাইয়ের স্ত্রী বলেন, আমরা এ বিষয়ে কিছুই বলতে চাই না।

এদিকে খাতামধুপুর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড মেম্বার আনোয়ারুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, আমি ও ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান জুয়েল চৌধুরী দিনাজপুরে এসেছি। এসপিকে বুঝিয়ে নিরপরাধ ছেলে দুটাকে ছাড়িয়ে নেয়ার চেষ্টা করছি। তবে এলাকার অনেকে জানান, আটক দুই জনসহ গ্রামের প্রায় ২০-৩০ জন যুবক থাই ও ভিসা প্রতারণায় জড়িত। অনেকে কিশোর বয়সেই এই অবৈধ পন্থায় বিপুল পরিমাণ অর্থ ও সম্পদের মালিক বনে গেছে।

নিউজজি/এসএম/নাসি 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন