বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮ , ৩ রমজান ১৪৪২

দেশ

বরিশাল চরবাড়িয়া ইউনিয়নে মানুষের সপ্ন আজ সত্যি

এস এল টি তুহিন, বরিশাল ৩ মার্চ, ২০২১, ১৩:৪৪:১৫

  • ছবি : নিউজজি

বরিশাল: সদর উপজেলার চরবাড়িয়া ইউনিয়নে বেলতলা খেয়াঘাট ওয়াটারপ্লান্ট থেকে শুরু করে চরআবদানী, রাড়ীমহল গ্রাম হয়ে চরবাড়িয়া ফারুক বিশ্বাসের বাড়ী পর্যন্ত বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের ৩৩১ কোটি ৪০ লাখ টাকা ব্যায়ে প্রায় চার কিলোমিটার গ্রাম রক্ষা বেরিবাধ প্রকল্প একনেকে অনুমোদন দেয় বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী, বাংলাদশ আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। যার ফলে তিনটি গ্রামের মানুষ বেঁচে গেলো আসন্ন বর্ষা মৌসুমের নদী ভাঙ্গন থেকে। নির্মান কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলায় প্রশংসায় ভাসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের মননীয় প্রতিমন্ত্রী, বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কর্ণেল (অবসরপ্রাপ্ত) জাহিদ ফারুক শামীম।

এই কিংবদন্তী নেতার জন্ম ১৯৫০ সালের ২৬ নভেম্বর তিনি বরিশাল শহরের পৈত্রিক নিবাসে। সেনাবাহিনীর সাবেক এই কর্মকর্তা স্বাধীনতার স্বপক্ষের শক্তি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে যুক্ত হওয়ার পরে ২০০৮ সালে গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বাক্ষরিত বরাদ্ধকৃত নৌকা প্রতীক নিয়ে বরিশাল সদর আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। সেই দফায় তিনি অল্প কিছু ভোটে পরাজিত হলেও আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতিক নিয়ে গত ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীকে বিপুল ভোটে পরাজিত করে এই আসনে জয়ী হন।

বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি জাহিদ ফারুক শামীমকে পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মন্ত্রিসভার পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে তাকে নিয়োগ দেয়। তারপর থেকেই সারা বাংলাদেশের ন্যায় বরিশাল সদর উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মসূচী হাতে নেয়া হয়। বর্তমান চরবাড়িয়া বেরিবাধ প্রকল্প শেষ হলে চরবাড়ীয়া হবে একটা পর্যটন এলাকা এবং রক্ষাপাবে হাজারো ঘর বাড়ি-সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান ও ফসলি জমি।

এ বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী কর্নেল (অব.) জাহিদ ফারুক শামীম এমপির কাছে জানতে চাইলে তিনি নিউজজিকে বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী মানবতার মা জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে পানি সম্পদ মন্ত্রনালয় দায়িত্য দেয়ায় আমি বরিশাল বাসির পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ জানাই তিনি আমাকে মনোনয়ন দিয়ে এই কাজ করার সুযোগ করে দিয়েছে, আপনাদের খেদমত করা আমার দায়িত্ব-কর্তব্য। এজন্যই আপনাদের সমস্যাগুলো আমার জানা আছে। এই সদর উপজেলায় বিভিন্ন প্রকল্প নেয়া আছে। যারমধ্যে ৬৪টি রাস্তার প্রকল্প নেয়া আছে, যার অনুমোদন হলে সদর উপজেলার সকল রাস্তার কাজ শুরু হয়ে যাবে। তালতলী বাজারে একটা মডেল মসজিদ করা হয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্ব উদ্যোগে এটাসহ গোটা বাংলাদেশে ৪৬০টি মডেল মসজিদ বানানোর নির্দেশ দিয়েছেন। এগুলো খুবই দৃষ্টিনন্দন মসজিদ হবে। যারা হজ করতে যাবেন তাদের এখানে প্রশিক্ষন দেয়া হবে, লাইব্রেরি থাকবে, কোরআন শিক্ষা দেয়া হবে, একসাথে অনেকে লোকের নামাজ পড়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। নেহালগঞ্জে ব্রীজের কাজের উদ্বোধন খুব শীঘ্রই করা হবে। যেটা হলে লোকজনের যাতায়াতের সুবিধা হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমার চিন্তাধারা হলো জনগনের খেদমত করা। মননীয় প্রধানমন্ত্রী সকলের কথা চিন্তা করেন বিধায় একসাথে গৃহহীনদের মাঝে ৭০ হাজার ঘর একদিনে দিয়েছে। করোনার মধ্যে তিনি দুহাত ভরে সাধারণ মানুষের জন্য প্রনোদনা দিয়েছে। আবার ইউরোপ, আমেরিকার সাথে আমরাও একই সময়ে ভ্যাকসিন দিতে পারছি প্রধামন্ত্রীর জন্য। অনেক দেশে এখনো ভ্যাকসিনের কোনো খবর নেই। তিনি আপনাদের কথা ভাবেন দেখেই এ সব উদ্যোগ নিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করবেন, তিনি যতদিন সরকার প্রধান আছেন ততদিন বাংলাদেশের উন্নয়ন হবে।

তিনি বলেন, কোনো দিন স্বপ্নেও ভাবিনি পদ্মাসেতু হবে। আজ পদ্মাসেতু হচ্ছে, পায়রা বন্দর হচ্ছে। ঢাকা থেকে পায়রা বন্দর পর্যন্ত রেললাইন ও চারলেনের রাস্তা হবে। এগুলো হলে বিভাগীয় শহর বরিশালে বিদেশিরা এসে অফিস করবে। জমির দাম বাড়বে। আর অফিস আদালত হলে আপনাদের সন্তানরা চাকুরি পাবে এবং আমাকে যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দায়িত্ব দিয়েছে আমি তা নিষ্ঠা ও সততার সাথে পালন করবো ইনসাআল্লাহ ও সকল বাঁধ প্রকল্পে বৃক্ষেরাপণ চলমান থাকবে। ঘূর্ণিঝড় আম্পানে আমরা দেখেছি যেসব এলাকায় বনায়ন ছিলো সেখানে নদী তীরবর্তী ভাঙন কম হয়েছে, ক্ষয়ক্ষতিও কম হয়েছে। তাছাড়া আম্পানে সুন্দরবন বাংলাদেশে প্রতিরক্ষা হয়ে কাজ করেছে।

বৃক্ষরোপণের গুরুত্ব নিয়ে প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীম আরো বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে জলোচ্ছ্বাস, ঘূর্ণিঝড়ের প্রকোপ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। এটা থেকে রক্ষায় বৃক্ষরোপণের বিকল্প নেই। পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় মনে করে, নদীভাঙন থেকে মানুষকে বাঁচাতে বৃক্ষেরাপণ করতেই হবে।

উল্লেখ্য, চরবাড়ীয়া নদী ভাঙ্গন রোধ বরিশালবাসীর একটা বড় চাওয়া ছিলো, যে কাজটি এখন দৃশ্যমান। চরবাড়ীয়ার এ প্রকল্প শেষ হলে বরিশাল যে দ্বিতীয় সিংঙ্গাপুর হবে তাতে কোনো প্রকার সন্ধেহ নেই বলে মনে করছেন অনেকেই।

এ কাজে নানা শ্রেণি পেশার মানুষ থেকে শুরু করে দলীয় নেতাকর্মীরাও ১০টি ইউনিয়নে উন্নয়ন দ্রুত গতিতে এগিয়ে যাওয়ায় বিশেষ করে চরবাড়িয়ার নদী ভাঙ্গল কবলিত এলাকার মানুষ বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কর্ণেল (অবসরপ্রাপ্ত) জাহিদ ফারুক শামীমকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করতে গিয়ে বলেন, সরকার এবং এমপিকে নিয়ে নিন্দুকেরা শুধু সমলোচনা করেই চলেছেন। সমলোচনা না করে ধৈর্য ধরুন আর দেখুন। এ রকম বেরিবাধ ও রাস্তা কোনো সরকার আমলে হয়নি। বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী মানবতার জননী বাংলাদশ আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন সৎ ও ভালো মানুষকে আমাদের এলাকায় জনপ্রতিনিধি হিসেবে পাঠিয়েছেন, বর্তমান এমপি জাহিদ ফারুক ১০টি ইউনিয়নের সব রাস্তা তৈরি করে দিবেন ইনশাআল্লাহ।

উল্লেখ্য, করোনা ও বর্ষাকাল থাকায় সড়কের কাজ বন্ধ ছিলো প্রায় ৮ মাস যাবত। এতে এলাকার বেশির ভাগ রাস্তাঘাট গুলো চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পরে। এমনকি রাস্তা গুলোতে কার্পেটিং উঠে গর্তে পরিণত হয়। করোনার প্রাদুর্ভাব স্বাভাবিক এবং বর্ষার মৌসুম শেষ হওয়ার পরপরই ১০টি ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তার সংস্কার ও পূর্ণ নির্মান কাজ শুরু করেন এই জনপ্রতিনিধি। ইতিমধ্যে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়কের নির্মাণ কাজ সম্পূর্ণ করেছেন।

সরোজমিনে গেলে দেখা যায়, ১০টি ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তার কার্পেটিং ইটের সলিং ও মাটি ভরাট কাজ নির্মাণ করেছেন। সড়কের কাজ দ্রুত হওয়ায় স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন ১০টি ইউনিয়নের সাধারন মানুষ। টেকসই ভাবে রাস্তা করায় প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীমকে ধন্যবাদ জানিয়েছে বরিশালবাসী।

এই প্রতিবেদকের কাছে কয়েকজন পথচারীরা বলেন, প্রতিমন্ত্রী মহোদয় রাস্তাসহ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ যে ভাবে করে যাচ্ছে তাতে আমাদের চলাচলে আর কোনো বেগ পেতে হবে না। আর গন্তব্য পৌঁছাতে সময়ও কম লাগবে, মনে হয় কোনো বিদেশি রাস্তা দিয়ে চলাচল করছেন এমনটাই জানান তারা।

এদিকে, প্রতিমন্ত্রীর এক বিস্বস্ত সূত্র থেকে জানা যায়, সড়ক সংস্কার কাজ চলমান, গোটা ইউনিয়নে যতগুলো রাস্তা চলাচলের অনুপযোগি রয়েছে সব রাস্তার তালিকা প্রতিমন্ত্রী নিয়েছেন, পর্যায়ক্রমে সব ধরনের সংস্কার ও পূণঃনির্মান করা হবে বলে ঐ সূত্রটি জানায়।

ঘুরে দেখা যায়, ইউনিয়নের বিভিন্ন রাস্তার কাজ চলমান রয়েছে। নির্মান কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলায় বরিশালবাসী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও পানি সম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্ণেল (অবসরপ্রাপ্ত) জাহিদ ফারুক শামীমকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন সচেতন মহল।

 

নিউজজি/এসএম

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers