রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ৫ আষাঢ় ১৪২৮ , ৯ জিলকদ ১৪৪২

ফিচার

অ্যাডেল: গান দিয়ে জয় করেছেন সবই!

কামরুল ইসলাম মে ৫, ২০২১, ১৩:০২:০৩

  • অ্যাডেল: গান দিয়ে জয় করেছেন সবই!

তার পুরো নাম অ্যাডেল লরি ব্লু অ্যাডকিন্স। কিন্তু বিশ্বজুড়ে পরিচিত অ্যাডেল নামেই। গান দিয়ে একজ সঙ্গীতশিল্পী যতটা অর্জন করতে পারেন, তার সবই বগলদাবা করেছেন এই ব্রিটিশ গায়িকা। আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা, তুমুল সাফল্য আর পুরস্কারের মঞ্চে বাজিমাৎ; সবই রয়েছে তার ক্যারিয়ারে। বিশ্ব সঙ্গীতের অন্যতম জনপ্রিয় এই গায়িকার জন্মদিন আজ। ১৯৮৮ সালের ৫ মে লন্ডনে জন্মগ্রহণ করেছিলেন অ্যাডেল।

অ্যাডেলের ছেলেবেলা মোটেও সুখকর ছিল না। মাত্র দু'বছর বয়সে তার বাবা ছেড়ে চলে যান। ফলে একা মায়ের কাছেই বড় হন অ্যাডেল। ৪ বছর বয়সেই গানের চর্চা শুরু করেন তিনি। কিন্তু সংসারের খরচ চলছিল না সেভাবে। তাই ১৯৯৭ সালে মায়ের সঙ্গে তিনিও একটি ফার্নিচার দোকানে কাজ শুরু করেন।

কিশোরী অ্যাডেল বন্ধুদেরকে গান শোনাতেন গিটার বাজিয়ে। ২০০৬ সালে এসে গানের ভুবনে আত্মপ্রকাশ করেন তিনি। একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মে প্রকাশ হয় তার দুটি গান। এছাড়া ক্লাসের এসাইনমেন্টের জন্য অ্যাডেল তিনটি গান জমা দেন। সেই গানগুলো তার এক বন্ধু মাইস্পেসে আপলোড করে দেন। সেখানে গানগুলো দারুণ সাফল্য পায়। এক্সএল রেকর্ডিংসের মালিক রিচার্ড রাসেল তাকে ডাকেন। মজার ব্যাপার হচ্ছে, অ্যাডেল তখন ভার্জিন রেকর্ডস ছাড়া কোনো কোম্পানি চিনতেন না। তাই এক্সএল রেকর্ডিংসে যাওয়ার সময় বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে যান।

২০০৬ সালের সেপ্টেম্বরে এক্সএল রেকর্ডিংস তাকে চুক্তিবদ্ধ করে। সেখানে তার জন্য 'মাই ইবন' শিরোনামে একটি গান করেন জ্যাক পিনাট। তবে সাফল্য পেতে আরও বছর খানেক সময় লাগে অ্যাডেলের৷ ২০০৭ সালের অক্টোবরে প্রকাশ হওয়া 'হোমটাউন গ্লোরি' গানটি তাকে জনপ্রিয়তা এনে দেয়।

সেই সঙ্গে অ্যাডেলের প্রথম অ্যালবাম '১৯' ব্রিটেনে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। তার ব্যতিক্রমী কণ্ঠস্বর সমালোচকদের কাছেও প্রশংসা পায়।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অ্যাডেল জনপ্রিয়তা পান ২০১১ সালে তার দ্বিতীয় অ্যালবাম '২১' প্রকাশের পর৷ এটি ছিল তার সম্পর্ক বিচ্ছেদের অনুপ্রেরণায় সৃষ্ট। যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রসহ ৩০টি দেশে এই অ্যালবাম এক নম্বরে চলে আসে।

'২১' অ্যালবাম দিয়ে অনেক পুরস্কার অর্জন করেন অ্যাডেল। বিলবোর্ডের ইতিহাসে প্রথম নারী হিসেবে আর্টিস্ট অব দ্য ইয়ার, বিলবোর্ড ২০০ অ্যালবাম অব দ্য ইয়ার (২১) এবং হট ১০০ সং অব দ্য ইয়ার (রোলিং ইন দ্য ডিপ) অর্জন করেন।

এর পরের বছর সঙ্গীতের সবচেয়ে বড় পুরস্কার গ্র‍্যামিতে বাজিমাৎ করেন অ্যাডেল। ছয়টি মনোনয়ন পেয়ে ছয়টিতেই পুরস্কার ছিনিয়ে নেন এই গায়িকা।

২০১২ সালে জেমস বন্ড সিরিজের সিনেমা 'স্কাইফল'-এর জন্য গান করেন অ্যাডেল। এর টাইটেল গান প্রকাশের পর ব্যাপক জনপ্রিয়তা পায়। ৫ মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি হয়েছিল এই গানের। এছাড়া এই গান দিয়েই অ্যাডেল অর্জন করে নেন অ্যাকাডেমি এওয়ার্ড বা অস্কার। জিতে নেন গোল্ডেন গ্লোব এওয়ার্ডও।

অ্যাডেল মাত্র চারটি অ্যালবাম প্রকাশ করেছেন। যার মধ্যে তিনটি স্টুডিও অ্যালবাম এবং একটি লাইভ অ্যালবাম। '১৯', '২১', '২৫' এবং 'লাইভ এট দ্য রয়েল অ্যালবার্ট হল' এই চারটি অ্যালবাম দিয়েই তিনি সঙ্গীত জগতের সমস্ত অর্জন নিজের করে নিয়েছেন।

জনপ্রিয় এই গায়িকা ক্যারিয়ারে প্রায় দেড়শটি সম্মানজনক পুরস্কার জিতেছেন। তার মধ্যে একটি অ্যাকাডেমি পুরস্কার, ১৫টি গ্র‍্যামি, ৯টি ব্রিট, ১১টি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস ও ১৮টি বিলবোর্ড এওয়ার্ড অন্যতম।

ব্যক্তিগত জীবনে অ্যাডেল বিয়ে করেছেন সাইমন কোনেচকিকে। ২০১৬ সালে বিয়ের পর চলতি বছর তাদের বিচ্ছেদ হয়ে যায়। এ দম্পতির একটি সন্তান রয়েছে।

 

 

নিউজজি/কেআই

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers