মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১, ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮ , ৫ শাওয়াল ১৪৪২

ফিচার
  >
ইতিহাস ও ঐতিহ্য

থেমে নেই বাঙালির মুক্তির আন্দোলন

নিউজজি ডেস্ক ১৬ মার্চ , ২০২১, ১৩:০০:২৭

  • ছবি : সংগ্রহ

ঢাকা: একাত্তরের এই দিনে উত্তাল পরিস্থিতির মধ্যে সকাল ১১টায় তৎকালীন প্রেসিডেন্ট হাউসে (বর্তমান ফরেন সার্ভিস একাডেমি সুগন্ধা) কড়া সামরিক পাহারায় ইয়াহিয়া-মুজিব বৈঠক হয়। কোনো মধ্যস্থতা ছাড়াই শুরু হয় সাড়ে সাত কোটি বাঙালির মহানায়ক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক জেনারেল ইয়াহিয়া খানের একান্ত আলোচনা।

এ সময় সংরক্ষিত এলাকার বাইরে অসংখ্য ছাত্র-জনতা ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ স্লোগান দেয়। টানা আড়াই ঘণ্টার বৈঠক শেষে বঙ্গবন্ধু বাইরে অপেক্ষমাণ দেশি-বিদেশি সাংবাদিকদের জানান, রাজনৈতিক ও অন্য সমস্যা সম্পর্কে প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। কাল সকালে আবার আলোচনা শুরু হবে। বঙ্গবন্ধু তার ধানমণ্ডির বাসভবনে আলোচনার অগ্রগতি দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের কাছে তুলে ধরেন।

ঢাকায় মুজিব-ইয়াহিয়া বৈঠক চললেও বিভিন্ন এলাকায় বাঙালিদের ওপর সামরিক বাহিনীর নির্যাতন আগের মতোই অব্যাহত থাকে। ঢাকা পিলখানা, রামপুরা, ফার্মগেট, কচুক্ষেত, চট্টগ্রাম, খুলনা, রংপুর সেনানিবাস এলাকা, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হোস্টেল, জোহা হল, মন্নুজান হল ও যশোর এলাকায় অসহযোগ আন্দোলনকারীদের ওপর অমানসিক নির্যাতন করে পাকিস্তানি সেনারা।  

আজকের এই দিনে ময়মনসিংহের এক জনসভায় ন্যাপপ্রধান মওলানা আবদুল হামিদ খান ভাসানী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর আসনে বসার আহ্বান জানান। এদিকে পশ্চিম পাকিস্তান থেকে পূর্ব পাকিস্তানে সেনা পরিবহন ঠেকানোর জন্য ভারত সরকার তার আকাশসীমার ওপর দিয়ে সব বিদেশি বিমানের পূর্ব পাকিস্তান তথা বাংলাদেশে গমন নিষিদ্ধ ঘোষণা করে।

মুজিব-ইয়াহিয়ার আলোচনা চললেও বাঙালির মুক্তির আন্দোলন থেমে নেই। আন্দোলনরত বাঙালিরা বুঝতে পারে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট ও প্রধান সামরিক আইন প্রশাসক ইয়াহিয়া খান আলোচনার নামে সময়ক্ষেপণ করছেন। তিনি যে পরিস্থিতি আঁচ করে বাঙালিদের ওপর চূড়ান্ত হামলার পরিকল্পনা করছেন সেটা বুঝতে বাকি থাকে না স্বাধীনতাকামী বাঙালির। সে কারণে সকল শ্রেণি-পেশার বাঙালি আন্দোলন-সংগ্রাম অব্যাহত রাখে। দেশমাতৃকাকে শত্রুমুক্ত করতে সংগ্রাম পরিষদ গঠনের কাজও এগিয়ে চলছে।

আন্দোলনের ধারাবাহিকতায় একাত্তরের এই দিনে নারায়ণগঞ্জের ডকইয়ার্ড শ্রমিকরা শীতলক্ষ্যা নদীতে নৌকা মিছিল ও টঙ্গীর বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা জঙ্গি মিছিল করেন। ঢাকা হাইকোর্ট প্রাঙ্গণে আইনজীবীরা সমাবেশের আয়োজন করেন। চারু ও কারুকলা মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষকরা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সমাবেশ ও নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল বের করেন।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers