বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭ , ১৩ রজব ১৪৪২

জীবনযাত্রা
  >
ফ্যাশন

নীল হলুদের জার্সি কেনার ধুম

নিউজজি ডেস্ক ৩১ মে , ২০১৮, ১৩:৫৩:০৬

  • নীল হলুদের জার্সি কেনার ধুম

বিশ্বকাপ এসেই গেছে বলা চলে। আয়োজক ও অংশগ্রহণকারী দলগুলো হুলুস্থুল ব্যস্ততায় দিন পার করছে। দেশে দেশে উড়ছে নিজেদের পতাকা। আবার যেসব দেশ বিশ্বকাপে খেলছে না, তারাও ব্যস্ত আছে উৎসবে শামিল হতে। বিশ্বকাপ ফুটবলকে সামনে রেখে বরাবরের মতো এবারও সাজসাজ রব বাংলাদেশে। প্রিয় দলের প্রতি সমর্থন জানানোর অন্যতম অনুষঙ্গ হয়ে উঠেছে জার্সি। দোকানিরাও ফুটবলপ্রেমীদের চাহিদা মেটাতে জার্সির পসরা সাজিয়ে বসেছে। 

রাশিয়া বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া বিভিন্ন দেশের জার্সি নিয়ে দোকানিরা পুরোদমে তৈরি। ফুটপাত থেকে শুরু করে নামিদামি বিপণিবিতানের দোকানগুলোতেও শোভা পাচ্ছে বিভিন্ন দলের জার্সি; চলছে বেচাকেনাও। তবে সব দলের জার্সি থাকলেও মূলত ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার জার্সি কেনার ধুম পড়েছে। রা

জধানীতে খেলাধুলার সরঞ্জামের সবচেয়ে বড় বাজার গুলিস্তানের মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়ামের দোকানিরা জানান, পুরো বছর তাদের বেচাকেনা চললেও বিশ্বকাপ এলে চাহিদা বাড়ে বিভিন্ন দলের জার্সির। তারা জানালেন, মানভেদে জার্সির দামের হেরফের রয়েছে, তবে ৩০০ থেকে হাজারের মধ্যেই মিলছে প্রিয় দলের জার্সি। 

স্টেডিয়ামে ১৪ বছরেরও বেশি সময় ধরে খেলাধুলার সরঞ্জামের ব্যবসা করে আসা ইসলাম এন্টারপ্রাইজের মালিক মনে করেন, বাজারে তিন মানের জার্সি বিক্রি হয়। লোকাল, চায়না ও থাইল্যান্ডের। লোকাল (দেশে তৈরি) জার্সির দাম ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা। চীনে তৈরি একটু ভালো মানের জার্সির দামও কিছুটা বেশি ৫০০ টাকা। সবচেয়ে ভালো মানের জার্সি আসে থাইল্যান্ড থেকে, যার প্রতিটির দাম ৭৫০ থেকে ৯০০ টাকা পর্যন্ত হতে পারে। এবার প্রথম রোজা থেকেই জার্সি বিক্রি শুরু হয়েছে, এখনও সেভাবে জমে না উঠলেও বিশ্বকাপ যত এগিয়ে আসবে বিক্রিও তত বাড়বে বলে আশাবাদী তারা। 

সব দলের জার্সি বাজারে থাকলেও সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার জার্সি। এরপরই চাহিদা রয়েছে জার্মানি, স্পেন ও পর্তুগালের জার্সির। ‘আমরা থাইল্যান্ড থেকে জার্সি আমদানি করা হয় এসব। দেশে পাওয়া যায় এমন সবচেয়ে ভালো মানের জার্সি এটাই, দাম ৯০০ থেকে হাজারের মধ্যে। এখান থেকে কিনে নিয়ে বড় বড় শপিংমলে আড়াই-তিন হাজার টাকায় এই জার্সি বিক্রি হয়। তবে যারা জার্সি চেনে তারা এখান থেকেই নেয়। 

বিশ্বকাপের আগে প্রিয় দলের জার্সি কিনব না, সেটা হতেই পারে না। এখানে জার্সির দাম সাধ্যের মধ্যে, গুণগত মানও ভালো আর দরদাম করে কেনা যাচ্ছে। দেশের অনেক কাপড় ব্যবসায়ী সারা বছর কাপড় বিক্রি করলেও বিশ্বকাপের সময় চাহিদার কথা ভেবে স্টেডিয়াম মার্কেটে জার্সি কিনতে এসেছেন।

ছবি – সুমিত দত্ত । 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers