শনিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ , ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

খেলা

করোনা পরিনত করেছে রুতুরাজকে

স্পোর্টস ডেস্ক অক্টোবর ৩০, ২০২০, ১৮:৪১:০৮

  • নেটে রুতুরাজ।ছবি-ইন্টারনেট

২০১৯ সালে অনুষ্ঠিত আইপিএলেও ছিলেন রুতুরাজ চেন্নাই সুপার কিংসে। বিক্রি হয়েছিলেন মহারাস্ট্রের এই টপ অর্ডার বেজ প্রাইস ২০ লাখ রূপীতে।তবে সেবার খেলার সুযোগ পাননি এই টপ অর্ডার। 

এবার যখন খেলতে এসে সুরেশ রায়না গেছেন ফিরে, তখন তার শুন্যস্থান পূরনে রুতুরাজের উপরই নির্ভর করতে হয়েছে চেন্নাইকে। তবে আইপিএল শুরুর আগেই করোনা আঘাত হানে চেন্নাই শিবিরে। একসঙ্গে আক্রান্ত হন ১০ জন। আক্রান্তদের মধ্যে ছিলেন রুতুরাজও।

এমনিতেই সুরেশ রায়না,হরভাজন সিং চেন্নাই সুপার কিংসকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ফিরে গেছেন দেশে। তার উপর বছরের শুরুতে রনজি ট্রফির পারফরমার রুতুরাজ আক্রান্ত করোনা ভাইরাসে। এমন দুঃসংবাদ শুনে  চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি আক্ষেপ করে বলেছিলেন-'নেটে দারুণ খেলছিল রুতুরাজ। দুর্ভাগ্য যে ও করোনা আক্রান্ত হল। শুরুর বেশ কিছু ম্যাচে পাওয়া গেল না ওঁকে। যদিও এ বারের আইপিএলকে মনে রাখবে রুতুরাজ। নিজের প্রতিভা দেখানোর সুযোগ অন্তত পেয়েছে ও।'

ধোনির সেই ভবিষ্যদ্বানী ভুল হয়নি। সুস্থ হতে  ২০ দিনের মতো লেগেছে রুতুরাচের। প্রথম তিনটি ইনিংস তার ০,৫.০ ! এমন তিনটি হতাশ করা ইনিংসের পর সুযোগ পাওয়ার আশা ছেড়ে দেয়ারই কথা। তবে সুযোগ পেয়েই অন্য এক রুতুরাজকে দেখেছে বিশ্ব। রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে ম্যাচ উইনিং ৫১ বলে ৬৫ রানের নট আউট ইনিংস, পরের ম্যাচে কোলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ৫৩ বলে ৭২ রানের ম্যাচ উইনিং ইনিংস। দু'টি ম্যাচেই আবার ম্যান অব দ্য ম্যাচ !  

করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কারণেই নাকি নিজেকে বদলে ফেলেছেন,পরিনত হয়েছেন,এমনটাই জানিয়েছেন ২৩ বছর বয়সী রুতুরাজ-'আমাদের অধিনায়ক বলেন সব পরিস্থিতির মোকাবিলা করো হাসি মুখে। করোনা আমাকে পরিণত করেছে। ওই সময় আমি ভবিষ্যৎ নিয়ে ভাবিনি। বর্তমান সময়টাকে নিয়েই ভেবেছি। যা আমার মানসিকতাকে কঠিন করেছে। তিন ম্যাচে রান না পাওয়ার পরেও তাই ভেঙে পড়িনি। নিজের ওপর বিশ্বাস ছিল। ভাল লাগছে দুটো হাফ সেঞ্চুরিই দলকে জিততে সাহায্য করেছে।'

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        









copyright © 2020 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers