শনিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২০, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ , ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

খেলা

গেইলের ইতিহাসময় রাতে নায়ক স্টোকস

শামীম চৌধুরী অক্টোবর ৩১, ২০২০, ০০:৫৮:০৫

  • স্টোকসের একটি শট।ছবি-ক্রিকইনফো

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব : ১৮৫/৪(২০.০ ওভারে)

রাজস্থান রয়েলস : ১৮৬/৩(১৭.৩ ওভারে)

ফল : রাজস্থান রয়েলস ৭ উইকেটে জয়ী।

হাজার ছক্কার রেকর্ডটা গেইলের হাত দিয়েই দেখতে চেয়েছে বিশ্ব। দেখেছেও। হাজার বাউন্ডারির রেকর্ডটা করেছিলেন সবার আগে, গত বছর। আইপিএলের মাঝপথে যোগ দিয়েছেন যখন, তখন চার অঙ্ক থেকে ২২টি ছক্কা দূরে ছিলেন টোয়েন্টি-২০ সেনসেশন।

৭ ম্যাচের মধ্যে  পারবেন কি গেইল, এই ম্যাজিক ফিগারে পৌঁছুতে ? এটাই ছিল  কৌতুহল।অপেক্ষা অতোটা করতে হয়নি। আইপিএলের চলমান আসরে নিজের ৬ষ্ট ইনিংসে এসেই ইতিহাস রচনা করেছেন। বাঁ হাতি ক্যারিবিয়ান লিজেন্ডারির ব্যাটে হাজারতম ছক্কা দেখার বিরল সৌভাগ্যও হয়েছে শুক্রবার।

আবুধাবিতে শুক্রবার খেলার শুরুর আগে ছক্কার চার অঙ্কে পৌছুঁতে বাকি ছিল তার ৭টি বিগ শট। ১৯তম ওভারে রাজস্থান পেসার কার্তিক ত্যাগীকে অন সাইডে বিশাল ছক্কায় সেই ম্যাজিক ফিগারে গেছেন পৌছে।

হাজারতম ছক্কার শটে এভারেস্টে পা রাখা গেইল ইতিহাস রচনার দিনে ২৩তম সেঞ্চুরির টার্গেট করেছিলেন। ২০তম ওভারের তৃতীয় বলে আরচ্যারের ফুলটসে লং অনের উপর দিয়ে ছক্কায় পৌছে গিয়েছিলেন ৯৯-এ। কিন্তু পরের বলেই বিপত্তি ! আরচ্যারের লো বাউন্সি ডেলিভারিতে অন সাইডে খেলতে যেয়ে বোল্ড আউটে থেমেছেন ! 

৯ মাস পর ক্রিকেটে ফিরে ইতিহাস রচনার ম্যাচে ৩৩ বলে করেছেন ফিফটি উদযাপন। হাফ সেঞ্চুরির শটটাও ছক্কা ! তবে আবুধাবিতে ইতিহাস রচনার ম্যাচে সেঞ্চুরি  হাতছাড়া করার কস্টে নিজের উপর এতোই বিরক্ত হয়েছেন যে, ব্যাটটা মেরেছেন ছুঁড়ে ! তাকে সেভাবে সঙ্গ দিতে পারেনি পার্টনার কেউ।শেষ ৩০ বলে ৬২ রানে গেইলের অবদান ২৯! ইতিহাস রচনার দিনে ১৫৭.১৪ স্ট্রাইক রেটে করেছেন রান (৬৩ বলে ৬ চার ৮ ছক্কায় ৯৯)। কিন্তু গেইলের ইতিহাসময় রাতটা যে পাঞ্জাব খেয়েছে ধাক্বা।

গেইলের ইতিহাসময় রাতে নায়ক রাজস্থান রয়েলসের বেন স্টোকস। নিউজিল্যান্ডের হাসপাতালে ক্যান্সার আক্রান্ত বাবার শয্যাপাশে থেকে আইপিএল শুরুর পর দিয়েছেন যোগ। দুবাইয়ে এসে কোয়ারেন্টিনে থেকে মাঠে যখন নেমেছেন, তখন ৬টি ম্যাচ শেষ হয়ে গেছে রাজস্থানের। এসে নিজেকে মানিয়ে নিতে লেগেছে সময় বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচের হিরোর।

প্রথম ৫ ইনিংস যথাক্রমে ৫,৪১,১৫,১৯,৩০। ৬ষ্ঠ ইনিংসে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের বিপক্ষে ম্যাচ উইনিং সেঞ্চুরি (১০৭*)। পরের ম্যাচে গেইলের ইতিহাস করে দিয়েছেন ম্লান (২/৩২ও ২৬ বলে ৫০)। উপযুূপরি ২ ম্যাচে ম্যান অব দ্য ম্যাচ এই ইংলিশ অল রাউন্ডার।   ১৮৫/৪ স্কোর নিয়েও রাজস্থান রয়েলস  হেরে গেছে ৭ উইকেটে। তাও আবার ১৫ বল হাতে রেখে ! 

১৮৫ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই পাঞ্জাব বোলারদের উপর হয়েছেন চড়াও। ব্যাটিং পাওয়ার প্লে-র এডভানটেজ নিয়েছেন। প্রথম উইকেট জুটির ৩৩ বলে ৬০-এ দিয়েছেন নেতৃত্ব। মাত্র ২৬ বলে ৬ চার,৩ ছক্কায় হাফ সেঞ্চুরি পূর্ন করে ক্রিস জর্ডানের বলে মিড অফে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন ঠিকই। তবে এই ঝড়ো ব্যাটিংয়ে পার্টনার ব্যাটসম্যানদের করেছেন উদ্দীপ্ত। তার দেখাদেখি স্যামসন ২৫ বলে ৪৮ করেছেন। শ্লগের চাপ নিতে হয়নি রাজস্থানকে। ৩০ বলে ৪০ রানের টার্গেট শেষ ওভার থ্রিলার পর্যন্ত যেতে দেননি স্মিথ (২০ বলে ৩০*),বাটলার (১১ বলে ২২)।চার-ছক্কার এই ম্যাচে আরচ্যারের বোলিংয়ে (৪-০-২৬-২) পাঞ্জাবকে ২শ' করতে দেয়নি রাজস্থান। বাকি কাজটা করেছেন স্টোকস। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচের ২ হিরো মিলেই রাজস্থানকে প্লে অফের কক্ষপথে রেখেছে। ১৩ ম্যাচ শেষে ২ দলেরই সংগ্রহ ১২ পয়েন্ট। শেষ ম্যাচটা তাদের মাস্ট উইন ম্যাচ।মেলাতে হবে সমীকরন-হেড টু হেড-রান রেট।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
        









copyright © 2020 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers