শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ২৬ চৈত্র ১৪২৭ , ২৭ শাবান ১৪৪২

খেলা

ম্যাক্সওয়েল ঝড়, অ্যাগারের ঘূর্ণিতে দুর্দান্ত জয় অজিদের

ক্রীড়া ডেস্ক মার্চ ৩, ২০২১, ১৫:৩৩:৫০

  • ছবি: ইএসপিএনক্রিকইনফো

প্রথম ম্যাচে বড় স্কোর করেও জিততে পারেনি অস্ট্রেলিয়া। এদিকে দ্বিতীয় ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের তোপে দাঁড়াতেই পারেনি দলটি। যে কারণে ৫ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ বেশ আগেই হাতছাড়া হওয়ায় শঙ্কা তৈরি হয়েছিল অজিদের জন্য। তবে সিরিজের তৃতীয় ম্যাচে গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের ক্যামিও ইনিংস ও অ্যাস্টন অ্যাগারের ঘূর্ণি জাদুতে দাপুটে জয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে অ্যারণ ফিঞ্চের দল। 

ওয়েলিংটনে বুধবার সিরিজের তৃতীয় টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ৬৪ রানের বড় ব্যবধানে। এজন্য সবচেয়ে বড় অবদান ম্যাক্সওয়েল ও আগারের। আগে ব্যাট করতে নামা অজিদের নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ২০৮ রান তুলতে দারুণ খেলেন ম্যাক্সি। এ ডানহাতি ৩১ বলে ৮ চার ও ৫ ছয়ে খেলেন ৭০ রানের দুর্দান্ত ইনিংস। এদিকে ৪৪ বলে ৮ চার ও ২ ছয়ে ৭১ রান করেন অধিনায়ক ফিঞ্চ। পরে বল হাতে ঘূর্ণি জাদু দেখান অ্যাস্টন আগার। আক্রমণে আসার পর থেকে এ স্পিনার একের পর এক উইকেট তুলে নিয়ে কিউইদের গুটিয়ে দেন মাত্র ১৪৪ রানে। বুধবার স্বাগতিকরা খেলতে পারে মাত্র ১৭.১ ওভার। একাই এদিন ৬ উইকেট নিয়েছেন অ্যাগার। এজন্য তিনি খরচ করেছেন মাত্র ৩০ রান। স্বাভাবিকভাবে ম্যাচ সেরার পুরস্কারও উঠেছে তার হাতে। 

বুধবার বল হাতে শুরুটা অবশ্য ভালো হয়নি অ্যাগারের। তার প্রথম ওভার থেকেই কিউই ব্যাটসম্যান কনওয়ে তিন চারে নেন ১২ রান। এরপর অবশ্য জ্বলে ওঠেন অজি স্পিনার। চার ওভার পর আক্রমণে ফিরেই প্রথম বলেই ফিলিপসকে ফেরান তিনি। এর এক বল পরই কনওয়েকে ডিপ উইকেটে স্টোয়নিসের ক্যাচে পরিণত করেন তিনি। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই কিউই শিবিরে ফের আঘাত করেন অ্যাগার। এবার তিনি তুলে নেন জিমি নিশামকে। তাকে উইকেটের পেছনে ক্যাচে পরিণত করেন এ ডানহাতি স্পিনার। 

এক ওভার পর ফিরেই আগার ফিরিয়ে দেন সাউদিকে। ততক্ষণে জয়ের গন্ধ পেতে শুরু করেছিল অজিরা। শেষ পর্যন্ত ইনিংসের ১৭তম ওভারে বল হাতে নিয়ে স্বাগতিকদের অবশিষ্ট দুই উইকেট তুলে নিয়ে এ স্পিনার অতিথিদের জয় উল্লাসে মাতান। তবে ৫ ম্যাচ সিরিজে এখনও ২-১ এগিয়ে রয়েছে নিউজিল্যান্ড। 

এরআগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে উইকেট হারালেও সফরকারীদের পথ হারাতে দেননি ফিঞ্চ। এ ডানহাতি এক প্রান্ত আগলে রেখে দারুণ খেলে দলের রানের চাকা দ্রুত গতিতে বাড়িয়ে দেন। জস ফিলিপসকে নিয়ে দ্বিতীয় উইকেটে তিনি গড়ে তোলেন ৫২ বলে ৮৩ রানের জুটি। এরপর ২৭ বলে ৩ চার ও ১ ছয়ে ৪৩ রান করে ইশ শোধির বলে গাপটিলের হাতে ধরা পড়ে ফেরেন ফিলিপস। তবে ম্যাক্সওয়েলকে নিয়ে প্রতিপক্ষ বোলারদের ওপর ছড়ি ঘোরাতে থাকেন ফিঞ্চ। তৃতীয় উইকেটে তারা গড়েন  ৬৪ রানের জুটি। ঠিক সে সময় ফিঞ্চ ফিরেন। তার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ৪৪ বলে ৮ চার ও ২ ছয়ে ৬৯ রান। এরপর ১৮তম ওভারের শেষ বলে আউট হওয়ার আগে তান্ডব চালান ম্যাক্সওয়েল।  সে পথ ধরে মাত্র ২৫ বলে ৭ চার ও ৩ ছয়ে তিনি পূর্ণ করেন হাফসেঞ্চুরি। সে ইনিংসটিকে পরে এ ডানহাতি রুপ দেন ৩১ বলে ৭০ রানে। শেষ পর্যন্ত তার ব্যাটে ভর করে সফরকারীরা পায় বড় পুঁজি। যার ওপর ভর করে দুর্দান্ত জয় তুলে নেয় সফরকারীরা। 

নিউজজি/সিআর

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers