শনিবার, ৮ মে ২০২১, ২৪ বৈশাখ ১৪২৮ , ২৬ রমজান ১৪৪২

খেলা

শেষ ওভার থ্রিলারে চ্যাম্পিয়ন মু্ম্বাইকে হারালো বেঙ্গালুরু

শামীম চৌধুরী এপ্রিল ১০, ২০২১, ০০:২০:৪৭

  • কোহলিকে রোহিতের অভিনন্দন।ছবি-ক্রিকইনফো

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স : ১৫৯/৮(২০.০ ওভারে)

রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরু : ১৬০/৮ (২০.০ ওভারে)

ফল : রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরু ২ উইকেটে জয়ী।

ম্লান হয়নি হার্শাল প্যাটেলের বোলিং (৫/২৭)। বেঙ্গালুরুর এই পেসারের বোলিংয়ে আইপিএলে সর্বাধিক ৫ বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের এবার শুরুটা হলো হার দিয়ে।১৬০ চেজ করতে নেমে শেষ বলে সিঙ্গল নিয়ে ২ উইকেটের জয়ে হার্শাল প্যাটেলে হাসলো বেঙ্গালুরু।    

২০১২ সালে রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরুতে শুরু করেছিলেন হার্শাল প্যাটেল আইপিএল মিশন। টানা ৬ মওশুম বেঙ্গালুরুকে সার্ভিস দেয়া গুজরাটের এই পেসারকে কিনে তিন বছর সার্ভিস নিয়েছে দিল্লী ক্যাপিটালস। এবার তাকে মাত্র ২০ লাখ রূপীতে ফিরিয়ে এনেছে বেঙ্গালুরু।

৩০ বছর বয়সী এই পেসারই আইপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে ছড়িয়েছেন আতঙ্ক। স্লগে তার ভয়ংকর একটা স্পেলে (৩-০-১২-৫) ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই থেমেছে ১৫৯/৮-এ।

চেন্নাইয়ের শ্লো উইকেটে টসে জিতে ফিল্ডিং নেয়া যথার্থ মনে করেছেন রয়েল চ্যালেঞ্জার বেঙ্গালুরু অধিনায়ক কোহলি।মিতব্যয়ী বোলিংয়ে তার আস্থার প্রতিদান দিয়েছেন তিন পেসার জেমিসন (৪-০-২৭-১),সিরাজ (৪-০-২২-০),হার্শাল প্যাটেল (৪-০-২৭-৫)।

ব্যাটিং পাওয়ার প্লে-তে ৪১/১ স্কোরে অবশ্য বড় স্কোরের স্বপ্ন দেখেছে ৫ বারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বাই। অজি ওপেনার ক্রিস লিন ওয়াশিংটন সুন্দরের দারুণ রিটার্ন ক্যাচে (৩৫ বলে ৪ চার,৩ ছক্কায় ৪৯) ফিরে গেলে মুম্বাইয়ের বড় স্কোরের পথে বাধা হয়ে দাঁড়ায়। সূর্যকুমার (২৩ বলে ৩১)-ক্রিস লিনের  দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ৩৬ বলে ৭০ রান ছাড়া বলার মতো পার্টনারশিপ হয়নি মুম্বাইয়ের।

ইশান কিষান, হার্দিক পান্ডিয়া,পোলার্ড,ক্রুনালের মতো বিগ হিটার থাকতেও  স্লগে হতাশ করেছে মুম্বাই। স্কোর শিটে শেষ ৩০ বলে ৩১ রান যোগ করতে হারিয়েছে তারা ৫ ব্যাটসম্যান। যার মধ্যে শেষ ওভারে হার্শাল প্যাটেলের শিকার ১ রানে ৪ উইকেট !! টোয়েন্টি-২০ ক্রিকেট ক্যারিয়ারে এই প্রথম দেখেছেন গুজরাটের এই ছেলেটি ৫ উইকেটের মুখ। টোয়েন্টি-২০তে এদিন উইকেটের সেঞ্চুরিও পূর্ন করেছেন হার্শাল প্যাটেল। ইশান-কিষাণকে এলবিডাব্লুউতে ফিরিয়ে দিয়ে ৯৭তম ম্যাচে এই মাইলস্টোন ছুঁয়েছেন ডানহাতি পেসার।

খেলার শেষ দিকে এসে ম্যাচটা জমিয়ে তুলেছিলেন মুম্বাইয়ের দুই পেসার বুমরাহ,জানসেন। ১৩তম ওভারে কোহলিকে এলবিডাব্লুউতে (২৯ বলে ৩৩) ফিরিয়ে দিয়ে বুমরাহ ম্যাচে ফিরিয়ে এনেছিলেন মুম্বাইকে। ১৫তম ওভারে জানসেন শর্ট বলে ম্যাক্সওয়েলকে ফাইন লেগে ক্যাচ দিতে বাধ্য করে (২৯ বলে ৩৯) এবং সাদাবকে (১) ফিরিয়ে দিলে শেষ ৩০ বলে ৫৪ রানের টার্গেট দূরুহ হয়ে পড়ে।

তবে ১৬তম ওভারে দীপক চাহারকে ১৫ এবং ১৮তম ওভারে বোল্টকে ১৫ রান নিয়ে বেঙ্গালুরুকে জয়ের কক্ষপথে রাখেন ডি ভিলিয়ার্স।ভিলিয়ার্স উইকেটে ছিলেন বলেই শেষ ৬ বলে ৮  রানের টার্গেটটা তখন হয়েছে সহজ।তারপরও শেষ বল পর্যন্ত ম্যাচটির উত্তেজনা ছিল জিইয়ে।

জয় থেকে যখন মাত্র ২ রান দূরে, তখন রান আউটে কাঁটা পড়ে ভিলিয়ার্স (২৭ বলে ৪চার ২ ছক্কায় ৪৮) দলকে কিছুটা স্নায়ুচাপে ফেলে দিয়েছিলেন। তবে শেষ ২ বলে ২ রান দূরুহ হয়নি।মুম্বাইয়ের জানসেন (৪-০-২৮-২) ও বুমরাহ (৪-০-২৬-২) করেছেন দারুণ বোলিং। 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers