বৃহস্পতিবার, ৬ মে ২০২১, ২২ বৈশাখ ১৪২৮ , ২৪ রমজান ১৪৪২

খেলা

ম্লান হলো মোস্তাফিজের বোলিং

স্পোর্টস রিপোর্টার এপ্রিল ২০, ২০২১, ০০:২৮:১০

  • উইকেটের আনন্দ মোস্তাফিজের। ছবি-ইন্টারনেট

চেন্নাই সুপার কিংস : ১৮৮/৯ (২০.০ ওভারে)

রাজস্থান রয়েলস : ১৪৩/৯ (২০.০ ওভারে)

ফল : রাজস্থান রয়েলস ৪৫ রানে জয়ী।

শেষ ওভার বাদ দিলে হাততালি পাওয়ার মতো বোলিং করেছেন মোস্তাফিজুর রহমান (৪-০-৩৭-১)। মোস্তাফিজুরের রাতে তার দুই পেস বোলিং পার্টনার সাকারিয়া (৩/৩৬) এবং ক্রিস মরিস (২/৩৩)-এর বোলিংও ছিল প্রশংসিত।

তবে মঈন আলীর অল রাউন্ড পারফরমেন্সের (২৬ রান ও ৩/৭) কাছে ম্লান হয়েছে মোস্তাফিজের বোলিং।১৮৯ রান চেজ করতে এসে হেরে গেছে মোস্তাফিজের রাজস্থান রয়েলস ৪৫ রানে।

কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে আইপিএলের প্রথম ম্যাচ খেলার কথা ছিল না মোস্তাফিজের। ঢাকা থেকে মুম্বাইয়ে উড়ে যেয়ে কোয়ারেন্টিন মেয়াদ কাটিয়ে পর্যাপ্ত অনুশীলন ছাড়া মাঠে নামায় প্রত্যাশিত বোলিং করতে পারেননি (৪-০৪৫-০)। তার পরও মোস্তাফিজে রেখেছে রাজস্থান রয়েলস আস্থা। দ্বিতীয় ম্যাচে দিল্লী ক্যাপিটালসের বিপক্ষে স্বরূপে ফিরেছেন মোস্তাফিজ (৪-০-২৯-২)। মুম্বাইয়ে সোমবার চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষেও চেনা মোস্তাফিজ হাজির (৪-০-৩৭-১)। 

মোস্তাফিজ শুরুটা করেছিলেন তার মতোই। প্রথম ওভারেই দিয়েছেন ব্রেক থ্রু। দিয়েছেন ফিরিয়ে ওপেনিং ব্যাটসম্যান গাইকোয়াডকে (১০)। প্রথম ৪ বলে একটি এলবিডাব্লুর আপীল,৩টি রান আউটের সুযোগ তৈরি হয়েছিল সেই ওভারে। ব্যাটিং পাওয়ার প্লেতে ১ ওভারে ৪ রান খরচায় ১ উইকেট ! প্রশংসার প্রাপ্য।

৭ম ওভারে মঈন আলীর কাছে একটি চার এবং একটি ছক্কা খেয়ে খরচা করেছেন ১৩। স্লগে ২ ওভার বরাদ্দ ছিল মোস্তাফিজের। ১৬তম ওভারে খরচা করেছেন মাত্র ৬ রান। ২০তম ওভারে খরচাটা একটু বেশি হয়েছে। একটি ওভার স্টেপিংয়ে নো ডেলিভারীর কারণে খরচা হয়েছে সেই ওভারে ১৫ রান।  এই ওভারে মোস্তাফিজকে অবধারিত ডুয়াইন ব্রাভোর উইকেট থেকে বঞ্চিত করেছেন ২ ফিল্ডার।

ওই ওভারে ২টি রান আউটের ২টিতেই রেখেছেন অবদান মোস্তাফিজ। ওভারের প্রথম বলে সাম কুরান মিড উইকেটে ঠেলে সিঙ্গলকে ডাবল বানাতে যেয়ে মোস্তাফিজের থ্রো হয়ে উইকেট কিপার স্যামসন করেছেন রান আউট । ওভারের তৃতীয় বলে স্যামসনের থ্রো থেকে শার্দুল ঠাকুরকে করেছেন রান আউট বোলার মোস্তাফিজ। ২৪টি ডেলিভারির মধ্যে ৯টি ডট, ২টি নো,১টিওয়াইড। এই নো দু'টির মূল্য দিতে হয়েছে মোস্তাফিজকে।

চেন্নাই সুপার কিংস এতো বড় স্কোরে নেই কারো হাফ সেঞ্চুরি। সর্বোচ্চ ৩৩ রান (১৭ বলে) করেছেন ডু প্লেসি। মঈন আলী ২৬ এবং রাইডু ২৭ রান করেছেন।১৮৯ রান চেজ করতে নেমে ১০ ওভার পর্যন্ত জয়ের কক্ষপথে ছিল রাজস্থান রয়েলস। বাটলার (৩৫ বলে ৫ চার,২ ছক্কায় ৪৯ রান) দেখিয়েছেন স্বপ্ন।  তবে মঈন আলীর বোলিংয়ে (৩-০-৭-৩) ইনিংসের মাঝপথে ব্যাকফুটে নেমেছে রাজস্থান। স্কোরশিটে ৮৭-৯৫, এই ৮ রানে ৫ উইকেট পড়ে যাওয়ায় ম্যাচে আর ফিরতে পারেনি রাজস্থান।  

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers