রবিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ , ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

খেলা

বাংলাদেশের দম্ভে স্কটল্যান্ডের আঘাত

শামীম চৌধুরী অক্টোবর ১৮, ২০২১, ০০:৩৬:৩৪

334
  • স্কটল্যান্ড অলরাউন্ডার গ্রিভসের উইকেট উৎসব। ছবি-ক্রিকইনফো

স্কটল্যান্ড : ১৪০/৯ (২০.০ ওভারে)

বাংলাদেশ : ১৩৪/৭ (২০. ওভারে)

ফল : বাংলাদেশ ৬ রানে পরাজিত।

ম্যান অব দ্য ম্যাচ : ক্রিস গ্রিভস (স্কটল্যান্ড)।

ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে স্কটল্যান্ড কোচের মন্তব্য-'বাংলাদেশ দলকে পাপুয়া নিউগিনি, ওমানের চেয়ে বড় দল মনে করি না।' টি-২০ র‍্যাঙ্কিংয়ে ৬ এর সঙ্গে ১৫-এর লড়াইয়ের আগে স্কটিশ কোচের এই মন্তব্যকে পাগলের প্রলাপ মনে করেছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহও। প্রসঙ্গ উঠতেই এক গাল হাসি দিয়ে বলেছিলেন-'তার এই মন্তব্য বদার্ড করি না।'

তবে স্কটিশ কোচের এই মন্তব্যটা যে পাগলের প্রলাপ নয়, তার প্রমান পেয়েছে বাংলাদেশ দল।৯ বছর আগে টি-২০র প্রথম মোকাবেলায় নিরপেক্ষ ভেন্যুতে বড় হারের বদলা নিতে পারেনি বাংলাদেশ দল। দ্বিতীয় মোকাবেলায়ও পর্যুদস্ত বাংলাদেশ। স্কটল্যান্ডের কাছে ৬ রানে হেরে প্রথম রাউন্ড  থেকেই বিদায় ঘন্টাধ্বনী শুনতে পাচ্ছে বাংলাদেশ।

দারুণ বোলিংয়ে (৪-০-১৭-২)২ উইকেট পেয়ে টি-২০ বোলারদের সর্বোচ্চ শৃঙ্গে উঠেছেন সাকিব (৮৯ ম্যাচে ১০৮ উইকেট)। ২৩তম বোলার হিসেবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৬০০ উইকেট ক্লাবের সদস্যপদ পেয়েছেন। সাকিবের ইতিহাস রচনার দিনে শেখ মেহেদীও করেছেন ক্যারিয়ারসেরা বোলিং (৪-০-১৯-৩)। শেষ স্পেলে ২ উইকেটে মোস্তাফিজও প্রত্যাশিত বোলিং করেছেন।

সাকিব-শেখ মেহেদীর রাতে মোস্তাফিজ ডেথ ওভারে উঠেছেন গর্জে। পর পর ২ বলে ফিরিয়ে দিয়েছেন দুই স্কটিশকে। এমন একটি রাতে স্কটল্যান্ডের ইনিংসের মাঝপথে মাত্র ৮ রানে ৫ উইকেট ফেলে দিয়ে যে গর্জনটা দিয়েছিলেন বোলাররা, সেই গর্জন ধরে রাখতে পারেনি।এমন একটি রাতে স্কটল্যান্ডের ইনিংসের মাঝপথে মাত্র ৮ রানে ৫ উইকেট ফেলে দিয়ে যে গর্জনটা দিয়েছিলেন বোলাররা, সেই গর্জন ধরে রাখতে পারেনি।

গ্রিভস ১৮তম ওভারে চাবুক চালিয়েছেন তাসকিনের উপর পর পর তিন বলে ৪, ৬, ৪ মেরে। ওই ওভারের ১৫ রান খরচাই একটু বেহিসাবি হয়ে গেছে।

ক্রিস গ্রিভসের হঠাৎ ঝড়ো ব্যাটিংয়ে (২৮ বলে ৪ বাউন্ডারি, ২ ছক্কায় ৪৫) স্কটল্যান্ড পেয়েছে লড়াকু পুঁজি। ৭ম উইকেট জুটির ৩৪ বলে ৫১ এবং স্লগের শেষ ৩০ বলে ৫৩ রানে স্কোরটা টেনে নিয়েছে স্কটল্যান্ড ১৪০/৯ পর্যন্ত।     

অস্ট্রেলিয়া, নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে হোমে স্লো উইকেটের পাতা ফাঁদ পেতে সিরিজ জয়ের গর্বের বিপরীতে টি-২০ বিশ্বকাপের ব্যাটিং প্র্যাকটিসটা যে হয়নি,  অনুশীলন ম্যাচে শ্রীলংকা, আয়ারল্যান্ডের কাছে হার-এ তা টের পেয়েছে বাংলাদেশ। বাকিটা রবিবার রাতে দেখেেছে বিশ্ব।

ব্যাটিং পাওয়ার প্লে-টা হচ্ছে না টি-২০'র মত। এই ম্যাচেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে ডেভিকে মিড উইকেটে সৌম্য (৫) এবং ৪র্থ ওভারে হুইলকে ডাউন দ্য উইকেটে খেলতে যেয়ে লিটন (৫) মিড অনে ক্যাচ দিয়ে ব্যাটিং পাওয়ার প্লে-তে বিপর্যয়ের আলামত দিয়েছেন। যে পর্বে স্কটল্যান্ডের ৩৯/১ এর জবাবে বাংলাদেশের স্কোর ২৫/২!

সাকিব-মুশফিকুর রহিমের ৪৭ রানের পার্টনারশিপ দেখিয়েছে স্বপ্ন। তবে গ্রিভসের পর পর দুই ওভারে সাকিব বাউন্ডারি রোপের সামনে রানিং ক্যাচ (২৮ বলে ২০) এবং অফ ফর্ম কেটে ওঠা মুশফিক স্ট্যাম্পের বলে স্কুপ করতে যেয়ে বোল্ড আউট হয়ে (৩৬ বলে ৩৮) সর্বনাশ ডেকে এনেছেন। আফিফ-মাহমুদউল্লাহর পার্টনারশিপ ৩২ রানে বিচ্ছিন্ন হলে টার্গেটটা দূরুহ হয়ে যায়। আফিফ ১২ বলে ১৮, মাহমুদউল্লাহ ২২ বলে ২৩ এ থামলে রনে ভঙ্গ দিতে হয় বাংলাদেশকে।

শেষ ৩০ বলে আয়ারল্যান্ড যেখানে করেছে ৫৩, সেখানে বাংলাদেশের টার্গেট ৫৪। এই টার্গেটটা ক্রমশ বড় হয়ে এক পর্যায়ে ১৮ বলে ৩৭, ১২ বলে ৩২, ৬ বলে ২৪ রানে দাঁড়ায়। শেষ ওভারে ২৪ রানের ঝুঁকি নিতে যেয়ে ৪, ৬, ৪ মেরে উত্তেজনা বাড়িয়ে দিয়েছিলেন মেহেদী-সাইফউদ্দিন। তবে ১ বলে ৮ রানের লক্ষ্যটা যে নো, ওয়াইড ছাড়া কল্পনাও করা যায় না।

সাকিবের ইতিহাস রচনার দিনটি ম্লান করেছে স্কটিশ অলরাউন্ডার গ্রিভস (২৮ বলে ৪৫ ও ২/১৯)। পাশে মার্ক ওয়াটের মিতব্যয়ী বোলিং (৪-০-১৯-১) এবং ব্রাড হুইলের উইকেট টেকিং বোলিং (৪-০-২৪-৩) বাংলাদেশকে দিয়েছে চরম লজ্জা।

স্কটল্যান্ড: ২০ ওভারে ১৪০/৯ (মানজি ২৯, কোয়েটজার ০, ক্রস ১১, বেরিংটন ২, ম্যাকলয়েড ৫, লিস্ক ০, গ্রিভস ৪৫, ওয়াট ২২, ডেভি ৮, শরিফ ৮*, হুইল ১*; তাসকিন ৩-০-২৮-১, মুস্তাফিজ ৪-১-৩২-২, সাইফ ৪-০-৩০-১, সাকিব ৪-০-১৭-২, মেহেদি ৪-০-১৯-৩, আফিফ ১-০-১০-০)

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১৩৪/৭ (লিটন ৫, সৌম্য ৫, সাকিব ২০, মুশফিক ৩৮, মাহমুদউল্লাহ ২৩, আফিফ ১৮, সোহান ২, মেহেদি ১৩*, সাইফ ৫*; হুইল ৪-০-২৪-৩, ডেভি ৪-০-২৪-১, শরিফ ৩-০-২৬-০, লিস্ক ২-০-২০-০, ওয়াট ৪-০-১৯-১, গ্রিভস ৩-০-১৯-২) 

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন