রবিবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২১, ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৮ , ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

খেলা

স্কটল্যান্ডের কাছে হার অনেক প্রশ্ন সামনে এনেছে

সালেক সুফী অক্টোবর ১৮, ২০২১, ১১:২০:৩৩

382
  • লেখক :সালেক সুফি, বিশিষ্ট ক্রীড়া বিশ্লেষক এবং পেট্রোলিয়াম ও খনিজ সম্পদ প্রকৌশলী, বিশেষজ্ঞ

অনেকে বলছেন অপ্রত্যাশিতভাবে স্কটল্যান্ডের কাছে হেরে গেছে বাংলাদেশ। স্কটল্যান্ডের কাছে এই নিয়ে দুইবার মুখোমুখি হয়ে দুইবার হেরে গেল বাংলাদেশ দল।  টি-২০ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের রেকডর্স বলার মতো নয়। 

গতকালের ম্যাচটি নিয়ে ২৬ ম্যাচ খেলেছে টি ২০ বিশ্বকাপে জয় মাত্র ৫ টি। বলার মতো মাত্র একটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে। আয়ারল্যান্ড, হংকংয়ের মতো দলের কাছে হারের অতীত আছে। এবার সেই লজ্জায় যুক্ত হলো স্কটল্যান্ড।সম্প্রতি দুর্বল জিম্বাবুয়ে খর্ব শক্তির অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিলান্ড দলের বিরুদ্ধে জয় বাংলাদেশের অনুরাগীদের মনে স্বপ্নের ফানুস জন্মেছে।

বাংলাদেশের এই দলটি ৭ জন আনকোরা নবীন খেলোয়াড় নিয়ে দেশের মাটিতে টি-২০ অনুপযোগী উইকেটে খেলে গাছে। সেই উইকেটে খর্ব শক্তির অস্ট্রেলিয়া এবং নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় নিয়ে টি-২০ বিশ্বকাপে খেলতে গেছে।

তবে সেই সিরিজ দুটোতেও কিন্তু ব্যাটসম্যানরা নিজেদের যোগ্যতা প্রমাণ করতে পারেনি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ,পাকিস্তানের মতো পরিণত দলগুলো যখন অভিজ্ঞ টি-২০ বিশেষজ্ঞ ক্রিকেটার নিয়ে দল সাজিয়েছে,  সেখানে বিসিবি কেনো তামিমের মতো অভিজ্ঞ এবং দেশসেরা ক্রিকেটারকে নিয়ে সাপলুডু খেলা খেলল ?

পাকিস্তান শেষ মুহূর্তেও দলে পরিবর্তন এনেছে। অপ্রত্যাশিতভাবে ফিরেছেন শোয়েব মালিকের মতো অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।  ক্রমাগত ব্যর্থ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানদের বিকল্প নিয়ে ভাবা হলো না ?  এই ভাবনার সময় কোথায় ? কারণ,  সবাই  ব্যস্ত ছিল বিসিবি সাধারণ সভা এবং সাজানো নির্বাচন নিয়ে। 

লিটন ,নাইম ,সৌম্য কেউ ছন্দে নেই। বিকল্প নিয়েও কেউ ভাবেনি। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জেনেছি তামিমকে নিজে থেকে সরে যেতে বাধ্য করা হয়েছে। দলে ১৫ জনের মধ্যে বিকল্প ব্যাটসম্যান শুধুমাত্র আনকোরা শামীম। এখনো শামীম বিশ্বকাপে খেলার মতো যোগ্য হয়ে উঠেনি। সবচেয়ে শঙ্কার  বিষয় মুশফিক ফর্মে নেই। মাহমুদুল্লাহ কীভাবে আহত হলো বোঝা গেলো না। স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে মাহমুদুল্লাহ কী ম্যাচে ফিট ছিল? এ প্রশ্ন উঠতেই পারে। যত বড় খেলোয়াড় হোক না কেন, ইনজুরি থেকে ফিরে খেলার ফর্ম পেতে সময় লাগে। 

নিউ জিল্যান্ড সিরিজের পর খেলোয়াড়দের প্রস্তুতি নিয়ে কারো খুব একটা মাথাব্যাথা ছিল না। সাকিব , মোস্তাফিজ যা কিছু প্রস্তুতির সুযোগ পেয়েছে আইপিএল ২০২১ খেলে। মোস্তাফিজ প্রথম দিকের ম্যাচ গুলো ভালো খেললেও শেষ ম্যাচগুলোতে তার বোলিং ছিল ছন্দহীন। সাকিবকে অনেক ম্যাচে সাইড বেঞ্চে বসিয়ে রেখে ছয় নম্বর বোলার হিসাবে খেলিয়েছে কেকেআর। ব্যাটিং করার সুযোগ পেয়েছে সামান্য। যেটুকু পেয়েছে, সেইসব ইনিংসেও নিজেকে চেনাতে পারেনি। 

মাস্কট আল আমিরাত ক্রিকেট মাঠের উইকেটে টার্ন ছিল। স্কটল্যান্ড স্পিন ভালো খেলে না, সবার জানা।  মেহেদী , সাকিব ওদের চেপে ধরেছিলো। তাসকিনের জায়গায় নাসুম থাকলে স্কটল্যান্ডের স্কোরটা ১০০-এর মধ্যে রাখা যেতো। অথচ,  ৫৩ রানে ৬ উইকেট হারানোর পর বাংলাদেশ মোমেন্টাম হারাল।  স্কটল্যান্ড ১৪০/৯ স্কোর করে চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিতে পারল।

এই রান তাড়া করতে লিটন সৌম্য শুরুতেই বিদায় নেয়ার পর সাকিব মুশফিক হাল ধরতে চেষ্টা করেও রানের চাহিদা মেটাতে পারেনি।  সেই লেগ স্পিন খেলার দুর্বলতা এই ম্যাচেও দেখলাম।  সাকিব, মুশফিক ,মাহমুদুল্লাহ তিন জন ৮৮ বল খেলে যোগ করল ৮১। এখানেই বাংলাদেশ পিছিয়ে গেল। ব্যাট হাতে মাহমুদুল্লাহকে বড়ই অচেনা লেগেছে। আমি বলব, ভালো খেলেই জয় পেয়েছে স্কটল্যান্ড যোগ্যতর দল হিসাবে। 

বাকি দুটি খেলা এখন বাংলাদেশের মরনপণ যুদ্ধ করতে হবে। নেট রান রেটের সমীকরণও মাথায় রেখে খেলতে হবে। পাপুয়া নিউ গিনি হয়তোবা সহজ প্রতিপক্ষ। ওমান কিন্তু শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী। তার উপর তারা স্বাগতিক দল।  বাংলাদেশ ভালো খেলে বড় ব্যবধানে জিতুক, এটাই চাইব।  কিন্তু এই দল  নিয়ে সুপার-১২ এর ভরসা যে এখন পাচ্ছি না।

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন