বৃহস্পতিবার, ১৫ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮ , ৩ রমজান ১৪৪২

খেলা

১৪৩ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক নভেম্বর ৪, ২০১৮, ১০:৩৭:৩৭

  • ১৪৩ রানে গুটিয়ে গেল বাংলাদেশ

জিম্বাবুয়ের দেয়া ২৮২ রানের জবাবে ছন্নছাড়ে ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত সিলেট টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শেষ বিকেলে বাংলাদেশ গুটিযে গেছে ১৪৩ রানে। তাতে সফরকারীরা পেয়েছে ১৩৯ রানের লিড।

সফরকারী দলের পেসে রোববার শুরুতেই খেঁই হারিয়ে বসেছিল বাংলাদেশ। ১৯ রান তুলতেই টপ অর্ডারের ৪ ব্যাটসম্যান ফিরে গিয়েছিল। সেখান থেকে মুশফিকুর রহীম (৩১) ও আরিফুল হকের (৪১*) ব্যাটে ভর করে দেড়শ ছোয়ার আশা করেছিল স্বাগতিকরা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য তেমনটা হয়নি। জিম্বাবুয়ের হয়ে  চাতারা ১৯ ও সিকান্দার রাজা ৩৫ রানে নেন ৩টি করে উইকেট।

ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট আবু জায়েদ

চারাতার বল স্কয়ার লেগে ঠেলে দিয়ে রান নিতে যেয়ে সিদ্ধান্ত হীনতায় ভুগেন আরিফুল-জায়েদ। দুজনই অবশ্য ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন। শেষ পর্যন্ত নন স্টাইক প্রান্তে টেইলর বল ছুঁড়ে দেন চাতারাকে। সহজেই উইকেট ভেঙে দেন এ পেসার। তাতে আউট হন জায়েদ। সঙ্গে সঙ্গে শেষ হয টাইগারদের প্রথম ইনিংস।

ফুলটাস বলে সিলি পয়েন্টে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন নাজমুল

উইকেটে টিকে থাকার লক্ষ্য নিযেই নেমেছিলেন নাজমুল ইসলাম অপু। কিন্তু সিকান্দার রাজা বুদ্ধিদীপ্ত বলে তাকে ফিরিয়ে দেন। এ অফস্পিনারের বলটি ছিল ফুলটাস।  যে কোন ব্যাটসম্যান ইচ্ছে করলেই পেতে পারেন চার। কিন্তু নাজমুল রক্ষণাত্বক কৌশলে খেলতে গিয়েই পড়লেন বিপদে। সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশ হারাল ৯ম উইকেট।

রাজার দ্বিতীয় শিকার তাইজুল

দলের ব্যাটিং বিপর্যয়ে তাইজুল চেয়েছিলেন আরিফুলকে সঙ্গ দিতে। কিন্তু তাকে সেটা করতে দেননি সিকান্দার রাজা। অফ স্টাম্পের বাইরে পিচ করা  তার বলে ব্যাট চালিয়ে এ বাঁহাতি তুলে দেন উইকেটের পেছনে। 

উইলিয়ামসের বলে ভাঙল মিরাজের প্রতিরোধ

টপ অর্ডার দ্রুত ভেঙে পড়ায় দলকে এগিয়ে নিতে প্রতিরোধ গড়েছিলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ৩৩ বলে ৩ চারে এ ডানহাতি ২১ রান করে আরিফুলকে নিয়ে এগোচ্ছিলেন বেশ। কিন্তু বদলি শন উইলিয়ামসের লেগ স্টাম্পের বাইরের বল ফ্লিক করতে গিয়ে তিনি পড়েন বিপদে। একটু বাড়তি লাফানো বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি। ব্যাটের কানায় লেগে সহজ ফিরতি ক্যাচ যায় বোলার উইলিয়ামসের কাছে। সে সময় বাংলাদেশের রান ছিল ৭ উইকেটে ১০৮।

বাংলাদেশের একশ

ব্যাটিং বিপর্যয়ের মধ্যে ৩৪.৫ ওভারে দলীয় ১০০ রানে পৌঁছায় বাংলাদেশ। সে সময় ক্রিজে ছিলেন আরিফুল হক ও মেহেদি হাসান মিরাজ। সপ্তম উইকেটে তারা বেশ দেখে-শুনেই খেলছেন। এরআগে ৬ উইকেট হারিয়ে মহাবিপদে পড়েছিল টিম টাইগার্স।

থিতু হয়ে ফিরলেন মুশফিক

দলের বিপদে অনেকবার হাল ধরেছিলেন। আরেকবার সেটাই করার চেষ্টা চালিয়েছিলেন। কিন্তু সিলেটে রোববার পারলেন না মুশফিকুর রহীম। চা বিরতির পরই কাইল জার্ভিসের ইন সুইঙ্গার ঠিক মতো পড়তে পারেনি তিনি। তাতে ব্যাটের কানা ছুঁয়ে বল জমা পড়ে রেজিস চাকাভার গ্লাভসে। তার আগে ৫৪ বলে পাঁচ চারে ৩১ রান করেন মুশফিক।

রাজার ঘূর্ণিতে ফিরলেন মুমিনুল

পেস আক্রমনে দিশেহারা বাংলাদেশ দলের হাল ধরার চেষ্টা করেছিলেন মুমিনুল হক। কিন্তু সিকান্দার রাজার স্পিন ভেলকিতে ঠিকই উইকেট বিলিয়ে দিয়ে ফিরলেন তিনি। অফ স্টাম্পের বাইরে পড়ে আরও বেরিয়ে যাওয়া বল ঠিক মতো খেলতে পারেননি মুমিনুল। শট খেলে করলেন ভুল। ব্যাটের কানা ছুঁয়ে সহজ ক্যাচ যায় স্লিপে হ্যামিল্টন মাসাকাদজার কাছে। ৩৮ বলে ১১ রান করে ফিরেন বাঁহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান মুমিনুল। ভাঙে মুশফিকের সঙ্গে তার ৩০ রানের পঞ্চম উইকেট জুটি।

পারলেন না মাহমুদউল্লাহ

দলের মহাবিপদের সময় হাল ধরতে একটু আগেই নেমেছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু ভারপ্রাপ্ত টেস্ট অধিনায়ক ২ বল মোকাবেলা করে চাতারার শিকার হয়েছেন। সিলেট টেস্টে রোববার রানের খাতা খুলতে পারেননি এ ডানহাতি। চাতারার অফস্টাম্পের বাইরের বল খেলতে গিয়ে প্লেড অন হয়ে বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি।

আবারও ব্যর্থ শান্ত

লম্বা সময় পর টেস্ট একাদশে ফিরেও নিজেকে প্রমাণ করতে পারলেন না নাজমুল হোসেন শান্ত। বাঁহাতি এ ব্যাটসম্যান সিলেট টেস্টে রোববার দলের বিপদের মুহূর্তে চাতারার বল অফসাইডে খেলতে গিয়ে পড়লেন বিপদে। ব্যাটের কানা ছুঁয়ে চলে যায় উইকেটরক্ষকের হাতে। প্রথম আম্পায়ার অবশ্য আউট দেননি। কিন্তু জিম্বাবুয়ের রিভিউয়ে তাকে ফিরতেই হয়েছে সাজঘরে ১ চারে ৫ রানে।

উইকেট বিলিয়ে দিলেন লিটন

কাইল জার্ভিসের অফ স্টাম্পের বাইরের বলে অকারণে খোঁচা দিলেন লিটন। তাতে নিজের বিপদ নিজে ডেকে আনলেন এ ডানহাতি। বল চলে গেল সোজা উইকেট রক্ষক চাকাভার গ্লাভসে। তার আগে ২৫ বলে ১ চারে ৯ রান করেন লিটন।

শুরুতেই ফিরলেন ইমরুল

লাঞ্চ থেকে ফিরে দেখে শুনে খেলছিলেন ইমরুল। কিন্তু ইনিংসের চতুর্থ ওভারে চাতারার অফ স্টাম্পের বাইরে পড়া পঞ্চম বল ঠুকে দিতে গিয়ে বিপদে পড়েন তিনি। ইনসাইড এজ হয়ে এ বাঁহাতি ফেরেন বোল্ড হয়ে। তার আগে ফর্মের তুঙ্গে থাকা ইমরুল করেন ১৩ বলে ১ চারে ৫ রান। সে সময় বাংলাদেশের রান ছিল ৪।

তাইজুল ম্যাজিকে ২৮২ রানে গুটিয়ে গেল জিম্বাবুয়ে

আগের দিনের ৫ উইকেটে ২৩৬ রান নিয়ে রোববার আবারও ব্যাটিংয়ে নামে জিম্বাবুয়ে।  চাকাভা ও পিটার মুরের ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে বেশ ভালভাবেই এগোচ্ছিল সফরকারীরা। কিন্তু প্রথম ঘন্টা শেষ হওয়ার আগেই অতিথি শিবিরে আঘাত করেন তাইজুল। তাতে বাংলাদেশ শিবিরে ফিরে আসে স্বস্তি। এরপর এ বাঁহাতি প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষায় ফেলেন তিনি। একের পর এক উইকেটও নিতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত তার ম্যাজিকাল ফিগারে (৬/১০৮)  মাত্র ২৮২ রানেই গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে।

তাইজুলের ৫ উইকেট

কাইল জার্ভিসকে ফিরিয়ে সাড়ে তিন বছর পর টেস্টে পাঁচ উইকেট পেলেন তাইজুল ইসলাম। সিলেট টেস্টের দ্বিতীয় দিনের দ্বিতীয় ঘন্টায় তার বল উড়াতে চেয়েছিলেন জার্ভিস। ঠিক মতো শট খেলতে পারেননি। ব্যাটের কানায় লেগে ক্যাচ যায় স্লিপে মেহেদী হাসান মিরাজের কাছে। টেস্টে এ নিয়ে চতুর্থবার ৫ উইকেট পেলেন তাইজুল, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয়বার।

নাজমুলের দ্বিতীয় শিকার মাভুটা

মাভুতাকে ফিরিয়েছেন সিলেট টেস্টের প্রথম ইনিংসে দ্বিতীয় শিকারের দেখা পেয়েছেন নাজমুল ইসলাম অপু। বাঁহাতি স্পিনারের সোজা বল ডিফেন্ড করতে চেয়েছিলেন মাভুতা। কিন্তু বলের লাইন মিস করে তিনি হন এলবিডব্লিউ। ফিরে যাওয়ার আগে তিনি করেন ৩ রান। সে সময় জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ছিল ৮ উইকেটে ২৭৩।
 

তাইজুলের চতুর্থ শিকার ওয়েলিংটন মাসাকাদজা  

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অভিষেক টেস্টের দ্বিতীয় দিনে প্রথম ঘণ্টা পানি পানের বিরতির পর উইকেট হারায় জিম্বাবুয়ে। অভিষিক্ত ওয়েলিংটন মাসাকাদজা তাইজুলের বলে পা বাড়িয়ে খেলতে চেয়েছিলেন। কিন্তু ঠিক মত বল ব্যাটে লাগাতে পারেননি তিনি। ব্যাটের কানা ছুঁয়ে সহজ ক্যাচ চলে যায় উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমের কাছে। ২৮ বলে চার রান করে ফিরে যান ওয়েলিংটন। সে সময় জিম্বাবুয়ের সংগ্রহ ছির ১১০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৬৯।

শান্তর ক্যাচে চাকাভাকে ফেরালেন তাইজুল

জিম্বাবুয়ের জমে যাওয়া জুটি নাজমুল হোসেন শান্তর সৌভাগ্যের এক ক্যাচে ভাঙলেন তাইজুল। শর্ট লেগে দারুণ ক্যাচে ক্যাচ রেজিস চাকাভাকে ফিরিয়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত। শুরুতে ক্যাচ হাতে নিতে পারেননি তিনি। তবে শরীর দিয়ে ভালোভাবেই কাভার করেন। পায়ে-হাতে লাগার পর বল আটকে যায় দুই পায়ের ফাঁকে। তার এই ক্যাচে ভাঙে ৬০ রানের জুটি। তার আগে ৮৫ বলে দুটি চারে ২৮ রান করে ফিরেন চাকাভা। সে সময় সফরকারীদের সংগ্রহ ছিল ১০৩ ওভারে ৬ উইকেটে ২৬১।

মুরের চতুর্থ হাফসেঞ্চুরি

দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে দুর্দান্ত খেলছেন পিটার মুর। এরইমধ্যে এ ডানহাতি তুলে নিয়েছেন ক্যারিয়ারের চতুর্থ হাফসেঞ্চুরি।

তাইজুল ইসলামকে চার হাঁকিয়ে ১৪৫ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন মুর। ডানহাতি এ ব্যাটসম্যান প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা ক্রিজে থেকে দেখা পান হাফসেঞ্চুরির। সে সময়ে তার ব্যাট থেকে আসে ৬টি চার।

জিম্বাবুয়েকে দ্রুত গুটিয়ে দিতে চায় বাংলাদেশ

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অভিষেক টেস্টের প্রথম দিনের শেষ ঘন্টায় জিম্বাবুয়ের কোন উইকেট নিতে পারেনি বাংলাদেশ। সে সুয়োগ প্রতিপক্ষ দলের শেষ স্বীকৃত জুটি পিটার মুর-রেজিস চাকাভা চাকাভা দারুণ খেলেন। কিন্তু রোববার টেস্টের দ্বিতীয় দিনে তাদের আর এগুতে দিতে চায় না টাইগাররা। দ্রুত গুটিয়ে দেওয়ার লক্ষ্য স্বাগতিকদের। সেটি হতে পারে ৩২০ রানের মধ্যে।

প্রথম দিন শেষে

জিম্বাবুয়ে : ৯১ ওভারে ২৩৬/৫ (মুর ৩৭*, চাকাভা ২০*, আবু জায়েদ ১৮-৩-৬১-১, তাইজুল ২৭-৩-৮৬-২,অপু ১৯-৫-৪২-১, মাহমুদউল্লাহ ২-০-২-১)

নিউজজি/সিআর

পাঠকের মন্তব্য

লগইন করুন

ইউজার নেম / ইমেইল
পাসওয়ার্ড
নতুন একাউন্ট রেজিস্ট্রেশন করতে এখানে ক্লিক করুন
copyright © 2021 newsg24.com | A G-Series Company
Developed by Creativeers