সোমবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০ , ১৬ শাবান ১৪৪৫

কবিতা
স্যামুয়েলের কবিতা, ‘বিশাল’

আমাদের সাথেই ছিল অথচ আমরা কখনো দেখিনি তাঁকে তাঁকে ঘিরে স্মৃতি চিহ্ন আঁকিনি তবুও তাঁকে ডেকেছিল নির্মম মৃত্যুর হাতছানি...

নোমান নজরবীর কবিতা, ‘ছায়া প্রসঙ্গ’

কিছু ছায়া নিঃসঙ্গ ও মাতাল—মদের বতলে পাওয়া যায়; সতর্কে গ্লাসে ঢালি ছায়াসুধা—আর মিশায়ে বরফের কুচি জমাট নির্জনে সাইলেন্ট করি পান এবং মৃদু ঝাকি লাগে আর বিবিধ বাহাস নিয়ে মগজে ঢুকে পড়ে ছায়ার কোলাহল...

শৈবাল নূর’র কবিতা, ‘তন্ত্র’

ধূর্ত দিন, ব্রাত্য রাত ছায়ার মতো চিহ্ন রাখে অস্ত লাল সূর্যটায় জীবন কই জীবন কই...

উজ্জ্বল দত্ত'র কবিতা, ‘এমনি করে একদিন’

খসে পরে স্বপ্নগুলো নিশিথী রাতের ডানায়, দাউ দাউ করে ডাকে শ্মশানে চিতার কাঠ...

শৈবাল নূর’র কবিতা, ‘দাহক’

তোমার শৈশবে হারানো নদীটি আমার এ নেত্র সহোদর— হারানো নূপুর হাতে দূরের দ্রাঘিমা ধরে ক্ষণ সে বসন্ত আর অবদমন নিয়ে ঘুমিয়ে ছিলাম আমি—

সুরভী রায়’র কবিতা, ‘আর বেশি কিছু নয়’

কোন এক সমুদ্দুরের পাড়ে আবছায়া কুয়াশায় চোখ ধাঁধায়... হাতড়ে হাতড়ে খুঁজে বেড়াই কিনারা...

শৈবাল নূরের কবিতা, ‘আমূল’

রাষ্ট্রের অপছায়ায় হারানো মানুষের মাঝে আমার ছোপ ছোপ মুখচ্ছবি ভাসে— সমষ্টির ভেতর বয়ে চলা জল একক নদীর মতো ভাঙনের কথা ভাববে কি? কূল ভেঙে, কূল হারা হয়ে...

মোহাম্মদ আদনান আলীর কবিতা, ‘রৌরবে নিহত শৈশব’

যাদের অজ্ঞাতে চুরি হয়ে গেছে সব কিছু তাদেরই উৎফুল্ল দেহ প্রতিদিন মিছিলের পিছে অপহৃত শৈশব কেবল টেনে চলে দিশাহীন পথে প্যাডেল কিংবা মেশিনের হাতলে মূক জীবন তারাবাজির স্ফুলিঙ্গেই শুধু ফোটে যার ফুল।...

ক্রীতদাস

প্রজাতন্ত্রে সবাই স্বাধীন‌ কেউ কেউ ক্রীতদাস, মননে-চিন্তায়-অন্তর্দৃষ্টিতে ঐতিহাসিক দর্শনে-বিশ্লেষণে নাগরিক সভ্যতায়-ইতিহাস চেতনায়...

আনিসুজ্জামান জুয়েল’র কবিতা, ‘ভুল মানুষ’

দূরত্ব যত হোক যদি জানা থাকে একদিন সেও ফিরে কাছে এসে ডাকে পড়ে থাকে ধূলোচিঠি নামের বানান ব্যথার আগুনে পোড়ে জমা অভিমান...

রাশেদ সাদী’র কবিতা সুসংবাদ

প্রতিদিন বুক ভেঙে দেওয়া একেকটা খবর আসে যেনবা ঘুম ভেঙে দেখলাম আমি আর দেখতে পাচ্ছি না টিএসসিতে যাওয়ার কথা; কেউ একজন সেখানে অপেক্ষায় রিকশা গুনছে—কিন্তু পা খুঁজে পাচ্ছি না খুব সংকট তবু বলতে পারছি না ‘বাঁচাও’...

আনিসুজ্জামান জুয়েলের কবিতা, ‘শীত আসছে...’

কোনো এক প্রাক্তন শীতে আমিও হেসেছিলেম রোদের মতোন করে! হেমন্তের বিষন্ন মাঠেদের মতো আড়মোড়া ভাঙিয়ে আমাকেও তুলে দেয়া হয়েছিল...

উজ্জ্বল দত্ত'র কবিতা, ‘তুমি ভাব দুর্বলতা’

যতই কাছে আসতে চাই ততোই যাও দূরে, শূন্যে ঘোরপাক খেতে খেতে লুটিয়ে পড়ি ! আর তুমি তা দেখে...

শৈবাল নূর’র কবিতা, ‘চাঁদরাত’

ধবধবে চাঁদরাতে খেয়া পারাপারের নৈঃশব্দ্যে বৌ আমার ঝাঁপ দিল নদীতে...